আমাদের আচরণবিধিতে স্বাগতম

প্রিয় সহকর্মী,

বিশ্বের এক নম্বর হওয়ার লক্ষ্য, আমরা যেকোন মূল্যে অর্জন করতে পারি না। শুধুমাত্র যথাযথভাবে আচরণবিধি মেনে কাজ করা এবং সঠিক সময়ে ঠিক কাজটি করার মাধ্যমে আমাদের সাফল্য আসবে।

আমি প্রায়ই আচরণবিধিকে একটি কম্পাস হিসেবে বিবেচনা করি, যা আমার যেকোন সংশয়ের সময়ে সঠিক দিক-নির্দেশনা দেয়। আমি সবার প্রতি আহবান জানাবো, সবাই যেন এটিকে দিক-নির্দেশনা হিসবে মেনে চলেন এবং এতে আপনার প্রশ্নেরউত্তর খুঁজে পেতে ব্যর্থ হলে, পরামর্শ নেওয়ার চেষ্টা করুন। কোম্পানির সুনাম এবং সাফল্য নির্ভর করে। আমাদের প্রত্যেকের সেরা পারফম্যান্স এবং আমাদের একই আচরণ বিধি অনুসরণ করার উপর |

আমরা যেহেতু একটি সত্যিকার বৈচিত্র্যময় কোম্পানিতে কাজ করি, তার জন্য আমাদের সকলেরই একই নৈতিক বিশ্বাসে বিশ্বাসী হতে হবে এবং আমাদের কোম্পানির মূল্যবোধ নিজেদের মধ্যে ধারণ করতে হবে। এই মূল্যবোধটিকে ধরে রাখার জন্য আচরণবিধিটি আমাদের পরামর্শ দেয়, আমরা কীভাবে কাজ করব এবং কী করলে অন্যদের থেকে আলাদা হব।

আমরা প্রত্যেকে পৃথকভাবে কাজ করলেও এই বিধি তার নিজস্ব উপায়ে আমাদেরকে ‘এক টিম’ হিসেবে কাজ করার শক্তি যোগায়। আমাদের যেকোন সিদ্ধান্ত প্রতিষ্ঠানের জন্য ফলাফল তৈরিতে বিশেষ প্রভাব ফেলতে পারে-তাই সমন্বিত সাফল্য অর্জনে অবদান রাখার ক্ষেত্রে আমাদের প্রত্যেকেরই ব্যক্তিগত দায়বদ্ধতা আছে।

আমি আপনাদের সকলকে জেটিআই আচরণবিধি মেনে চলার আহবান জানাচ্ছি। এটি মোটেও জটিল কিছু নয়, এর বেশিরভাগই সাধারণ কান্ডজ্ঞানেরই অংশ। আমাদের প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা পেতে, আমরা আসলে কী চাই, আমাদের লক্ষ্য কী এসব বিষয় জানতে এবং প্রত্যেকটি কাজের শেষে আপনি যাতে নিশ্চিত হতে পারেন যে; আপনি সঠিক কাজটিই করেছেন, সেজন্য আপনারা এই আচরণবিধি অনুসরণ করুন; যেমনটি আমি করি।


এডি পিরার্ড
প্রেসিডেন্ট ও সিইও

”বিশ্বের এক নম্বর হওয়ার লক্ষ্য, আমরা যেকোন মূল্যে অর্জন করতে পারি না”।

পরবর্তী সিসিও’র শুভেচ্ছাবাণী